সাদা চমচম তৈরির রেসিপি , জেনে নিন

সাদা চমচম তৈরির রেসিপি , জেনে নিন

( বাহারি রান্না শিখুন ) সাদা চমচম খুবই বিখ্যাত ও জনপ্রিয় একটি মিষ্টি । দোকানে মজার মজার সব মিষ্টির পাশাপাশি এই সাদা চমচম টাও বেশ একটা জায়গা করে নিয়েছে । খেতে কিন্তু দারুন মজার । তাই আজ আপনাদের জন্য নিয়ে এলাম সাদা চমচম তৈরির রেসিপি । এই মিষ্টিটা বানাতেও কিন্তু আমার সেই স্পেশাল মিষ্টির ময়দাটা ব্যবহার করেছি ।

চলুন তাহলে দেখে নেওয়া যাক সাদা চমচম তৈরির রেসিপিটি…..

উপকরণ :

ফ্রেশ পানি শুন্য ছানা – ১ কাপ
সুজি – ১/২ চা চামচ
স্পেশাল মিস্টির ময়দা – ১+১/২ চা চামচ (সমান করে)
খাবার তেল – ১ চা চামচ
গুঁড়া চিনি – ১+১/২ টি স্পুন
এলাচ গুঁড়া – ১ চিমটি

শিরার জন্য যা যা লাগবে –

চিনি – ১+১/২ কাপ
পানি – ৫+১/২ কাপ
এলাচ – ৩ থেকে ৪ টা
ফুটানো গরম পানি পরে দেবার জন্য – ৩ থেকে ৪ কাপ

প্রস্তুত প্রণালী :

প্রথমেই ফুল ফ্যাট ফ্রেশ মিল্ক থেকে ছানা কেটে নিন । (সাধারণত ১ লিটার দুধ থেকেই ১ কাপ ছানা হয়) । ছানা কাটার বেশ কয়েক ঘন্টা (৩-৪) পরে ই মিস্টি বানাবেন । খুবই গুরুত্বপূর্ণ যে জিনিস টা খেয়াল রাখতে হবে তা হলো ছানা সফট থাকবে কিন্তু কোন পানি থাকবে নাহ । অনেক সময় ছানার পানি শুকাতে গিয়ে ছানাটা বেশি ড্রাই হয়ে যায় সেটা যেন না হয় খেয়াল রাখবেন । আবার যেন পানি পানি ও না থাকে ।

ছানার পানি শুকিয়ে গেলে একটা ছড়ানো প্লেটে বা শুকনো স্পেস এ ছানা টা নিয়ে হাতের তালুর সাহায্যে ভাল করে মথে নিন সবগুলো ছানা ২/৩ বার । এবার ছানার মধ্যে একে একে সুজি , মিস্টির ময়দা ও চিনি দিয়ে সব উপকরণ হাতের সাহায্যে আগে ছানার সাথে মিলিয়ে নিয়ে তেল টা দিয়ে আবারো একটু ভাল করে মথে নিন । (তেল দিলে জাল দেবার পরেও মিস্টি রাবারি হয় না আর স্ফট ও থাকে) । খুব বেশি মথার দরকার নেই । ছানার দানাগুলো ভেঙে সফট আর স্মুথ হলে হাতে অল্প ছানা নিয়ে দেখেন যে গোল স্মুথ বাইরে ক্রাক ছাড়া বল হয় কিনা হলে ছানা রেডি ।

একটা ছড়ানো হাড়িতে চিনি , পানি ও এলাচ দিয়ে চুলায় বসিয়ে শিরা হতে দিন ।

শিরা হতে হতে মিষ্টিগুলো বানিয়ে নিন । ছানাটা সমান ৮-১০ বা ১২ টা ভাগ করে নিয়ে পছন্দমতো শেপে চমচম বানিয়ে নিন সবগুলো । বাইরে যেন কোন ক্রাক না থাকে মিস্টির ।

শিরা টা কয়েকবার ফুটে উঠলেই চুলার আচ কমিয়ে বা অফ করে দিয়ে মিস্টিগুলো শিরাতে ছেড়ে দিন । (ফুটন্ত শিরাতে কখন ই মিষ্টি ছাড়বেন না)

মিষ্টিগুলো শিরাতে ছাড়ার পর চুলা অন করে আচ টা মাঝারি থেকে একটু বাড়িয়ে দিন । ঢাকনা দিবেন না এবার কয়েক মিন অপেক্ষা করুন মিস্টিগুলো উপরে একটু ভেসে উঠা পর্যন্ত ৩-৪ মিনিট এর মধ্যেই মিষ্টি গুলো উপরে ভেসে উঠে এলেই ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিন ২০ মিনিট এর জন্য আর চুলার আচটা মাঝারি করে দিন ।

অন্য চুলায় হাড়িতে ২-৩ কাপ পানি ফুটতে দিন ।

২০ মিনিট পর ঢাকনা খুলে মিস্টিগুলো হাল্কা হাতে উল্টে দিন আর একদম সাইড ঘেষে হাফ কাপ গরম পানি ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে শিরার মধ্যে দিয়ে দিন । (এরমধ্যেই মিষ্টিগুলো ফুলে প্রায় ডাবল হয়ে যাবে আর খুবি সফট থাকবে) আবার ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিন ২০ মিনিট এর জন্য ।

২০ মিনিট পর আবারো ঢাকনা টা খুলে দিয়ে হাফ কাপ গরম পানি একইভাবে শিরাতে দিয়ে দিন আর খুবি আলতো হাতে মিষ্টিগুলো আরেকবার উল্টে দিন আর (স্পেশাল ময়দার জন্য) এখন মিষ্টিগুলো কিন্তু আগের থেকে আরো সফট থাকবে তাই উল্টে দিবেন খুবি সাবধানে । আবার ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিন ।

একি প্রসেস ২ বার রিপিট করুন । মোট ১ ঘন্টা ২০ মিনিট মত জ্বাল দিবেন । শেষের দিকে শিরা যদি খুব বেশি ঘন লাগে তো ১ কাপ করে গরম পানি দিবেন (শিরা যেন বেশি ঘন হ্য় না যায় সেটা খেয়াল রাখবেন) । মিষ্টি টা শেষে আর উল্টানোর প্রয়োজন নেই কেন না মিষ্টি খুবি সফট থাকবে । (পরে ঠাণ্ডা হলেই পেয়ে যাবেন স্ফট স্ফট মজার চমচম)

১ ঘন্টা ২০ মিনিট পর মিষ্টি রেডি হলে চুলা অফ করে দিয়ে চমচম গুলা ঢেকে রেখে দিন ঠাণ্ডা হওয়া অবদি । (৪-৫ ঘন্টা) ৫-৬ ঘন্টার আগে মিষ্টি ফ্রিজেও দিবেন নাহ ।

ঠাণ্ডা হলে এমনি বা মাওয়ায় গড়িয়ে পরিবেশন করুন দারুন মজার তুলতুলে রসালো সাদা চমচম ।

ছানা পারফেক্ট আর মিষ্টির স্পেশাল ময়দা দিয়ে মিষ্টি বানালে মিষ্টি খুবি স্ফট , ফ্লাপি আর ভিতর টা সুন্দর হবে ।

আমি আমার স্পেশাল মিস্টির ময়দার রেসিপিটি নিচে লিখে দিলাম ।

স্পেশাল মিস্টির ময়দা :

উপকরণ –

অল পারপাস ফ্লাওয়ার / ময়দা – ১/২ কাপ ( সমান করে)
বেকিং পাওডার – ১/২ চা চামচ (সমান করে)
বেকিং সোডা – ১/৮ টি স্পুন বা ২ চিমটি

উপরের সব উপকরণ একসাথে মিলিয়ে ভাল করে কয়েকবার চেলে নিলেই রেডি । ১ টা এয়ার টাইট বোয়ামে ভরে রেখে দিন ।

যে মিষ্টি ই বানান সেটা সব উপকরণ একি রেখে শুধু নরমাল ময়দার জায়গাতে পরিমান মত এই স্পেশাল মিষ্টির ময়দা টা পরিমাণ মত দিয়ে মিষ্টি টা বানাবেন মিষ্টি খুবি সুন্দর হবে । যেমন ফুলবে তেমনি সফট আর সুন্দর হবে ।

রেসিপি ও ছবি – সংগৃহীত

Comments

comments

, , , , , ,